‘প্রবাসে হৃদয়ে বাংলাদেশ বার্মিংহাম’ নামে নতুন সামাজিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ

আন্তর্জাতিক আমেরিকা ইউরোপ কমিউনিটি সংবাদ কানাডা বাংলাদেশ যুক্তরাজ্য

ব্যাপকভাবে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন এবং স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতির প্রতিবাদে জোরালো ভূমিকা রাখার অঙ্গিকার

জিয়া তালুকদার:

বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ব্যাপকভাবে উদযাপন এবং বিভিন্ন মহলের স্বাধীনতার ইতিহাস বিকৃতির বিরুদ্ধে জোরালো ভূমিকা রাখার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে স্বাধীনতার স্বপক্ষের বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে বার্মিংহামের স্মল হীথের এক রেস্টুরেন্টে।

মতবিনিময় সভায় বক্তারা স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী ব্যাপকভাবে আয়োজনের উপর জোর দিয়ে একটি অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন প্রতিষ্ঠার উপর গুরুত্ব দেন। তারা বলেন- বার্মিংহামে বিভিন্নভাবে বিভিন্ন মহল মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতিতে লিপ্ত রয়েছে। স্বাধীনতা বিরোধীরা ইতিহাস বিকৃতি করে বিভিন্নভাবে উপস্থাপন করছে তাদের এই ঘৃণিত তৎপরতার তীব্র নিন্দা প্রকাশ করেন বক্তারা। স্বাধীনতার সপক্ষ শক্তি অতীতে কখনো নিরব ছিল না, বর্তমানেও নিরব থাকার সুযোগ নেই। তাই ঐক্যবদ্ধভাবে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি রোধে কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ এবং নবগঠিত এই সংগঠনের পক্ষ থেকে এর আনুষ্ঠনিক প্রতিবাদ জানানোরও দাবী জানান বক্তারা।

গত ২১ জুন সোমবার, দুপুর দুইটার সময় অনুষ্ঠিত এ মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন- আলহাজ্ব বশির মিয়া কাদির। সভা পরিচালনা করেন হাজী কবির উদ্দিন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- বুলন চৌধুরী, মআ কাদির, মোস্তফা কামাল বাবলু, আশিক মিয়া, কামাল আহমেদ, নুরুল ইসলাম কিসলু, নাসির আহমদ  শ্যামল, জুম্মা আহমেদ লিটু, ফখরুল ইসলাম, হাসিব উদ্দিন মতিন, মোদাব্বের হোসেন দুলু, মতিন মিয়া, এলাহি হক সেলু, আজাদুর রহমান আজাদ, সাইফুর রহমান বাসিক, জয়নাল ইসলাম, আমিরুল ইসলাম বেলাল, মাওলানা রশিদ আহমদ, জিয়া উদ্দিন তালুকদার, আবু হায়দার চৌধুরী সুইট, শাহজাহান খান প্রমুখ।

মতবিনিময় সভায় সর্বসম্মতিক্রমে একটি অরাজনৈতিক সামাজিক সংগঠন প্রতিষ্ঠা করা হয়।

সংগঠনের নাম ‘প্রবাসে হৃদয়ে বাংলাদেশ বার্মিংহাম’ নির্ধারণ করা হয় এবং সবার মতামতের ভিত্তিতে হাজী কবির উদ্দিনকে আহ্বায়ক এবং উপস্থিত সবাইকে আহ্বায়ক কমিটির সদস্য হিসেবে মনোনীত করা হয়। পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন পর্যন্ত আহ্বায়ক কমিটি দায়িত্ব পালন করবেন।

বাংলাদেশের সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন, বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় দিবস ও বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস ও ঐতিহ্য বহির্বিশ্বে তুলে ধরাই হবে এই নবগঠিত সামাজিক সংগঠনের মূল উদ্দেশ্য উল্লেখ করে অতি শীঘ্রই সবার উপস্থিতিতে পূর্ণাঙ্গ কমিটি করা হবে বলে জানান আহবায়ক কবির উদ্দিন।

সভাশেষে সমাপনি বক্তৃতায় অনুষ্ঠানের সভাপতি বশির মিয়া কাদির সবাইকে অংশগ্রহণ করায় বিশেষ ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। সবশেষে মোনাজাত পরিচালনা করেন মাওলানা রশিদ আহমদ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *