১৪ দিনের মধ্যে কাউকে ফেরানো যাবে না

Uncategorized আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য-জীবনযাপন

১৪ দিনের মধ্যে কাউকেই উহান ছাড়তে দেবে না স্থানীয় কর্তৃপক্ষ। করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে বাংলাদেশিসহ উহানে থাকা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিকদের জন্য অভিন্ন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেইজিং ও উহান কর্তৃপক্ষ। চীনের পররাষ্ট্র দপ্তরের বরাত দিয়ে ঢাকায় এমনটাই জানিয়েছে বেইজিংস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস। ঢাকায় পাঠানো এক রিপোর্টে বলা হয়েছে,  ছোঁয়াচে ব্যাধি করোনা ভাইরাস দ্রুত ছড়াচ্ছে। নতুন করে ২৭০০ জন গতকাল আক্রান্ত হয়েছেন মর্মে নথি রেকর্ডভুক্ত হয়েছে। তবে এদের সবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা পুরোপুরি শেষ হয়নি। যেটা ধারণা দেয়া হয়েছে তা হলো এর মধ্যে ৫০ ভাগের বেশি করোনা আক্রান্ত হতে পারেন। বাকিরা হয়তো ভয়ে রিপোর্ট করেছেন।

ঢাকায় পাঠানো বেইজিং মিশনের রিপোর্টের উদ্ধৃতি দিয়ে সেগুনবাগিচার দায়িত্বশীল একটি সূত্র বলছে, আতঙ্কে চীন থেকে ফিরতে চায় এমন বাংলাদেশিদের ফেরাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার তরফে জরুরি নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দূতাবাস সেই নির্দেশনার আলোকে কাজ শুরু করেছে। বাংলাদেশি যারা ফিরতে চান তাদের দূতাবাসের সঙ্গে যোগাযোগের পরামর্শ দিয়ে বলা হয়- দূতাবাস তাদের একটি তালিকা করছে। ওই তালিকা ধরে পরিস্থিতি বিবেচনায় স্থানীয় কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত মতে দ্রুত তাদের ফেরানো হবে। স্মরণ করা যায়, যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান উহানে আটকে পড়া তাদের নাগরিকদের ফেরাতে বিশেষ বিমান পাঠানোর জন্য চীনা কর্তৃপক্ষের অনুমোদন চেয়েছে। এ সিদ্ধান্তের কারণে দেশ দু’টির আবেদনও ঝুলে গেলো।

এদিকে করোনা ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল উহান পরিদর্শন করেছেন চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং। জরুরি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কেন্দ্রীয় সরকারের সর্বাত্মক সহযোগিতার বিষয়টি জানান দিতেই চীন সরকারের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তির ওই পরিদর্শন। তিনি ভিডিও কনফারেন্সে কন্টেইন করে রাখা ভাইরাস আক্রান্ত একজন রোগী এবং তার সেবায় নিয়োজিত চিকিৎসক টিমের সঙ্গে কথা বলেছেন। করোনা ভাইরাস ধরা পড়লেও সেই তথ্য প্রকাশ করতে দেরি করার কড়া সমালোচনার মুখে উহান সিটি মেয়র এবং স্থানীয় কমিউনিস্ট পার্টির সেক্রেটারি দায় স্বীকার করে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন।

 

বিশ্বব্যাপী মারা যেতে পারে সাড়ে ৬ কোটি মানুষ

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *